গুগল এডসেন্স লো ভ্যালু সমস্যার সমাধান-১০০% এডসেন্স এপ্রুভ হবে

আজকের এই আটিকেলটি শুধু মাত্র নতুন ব্লগারদের জন্য লেখা। যারা গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করার পরও লো ভ্যালু কনটেন্ট(Low value content) দেখিয়ে রিজেক্ট করে দিচ্ছে।
আমি jorip24.com ওয়েবসাইট এবং এডসেন্স নিয়ে কাজ করি। ব্লগিং শুরুর দিকে খুব সহজেই গুগল এডসেন্স এপ্রুভ পাওয়া যেতো। তবে দিন যত বেশি সামনে দিকে এগিয়ে যাচ্ছে গুগল এডসেন্স এপ্রুভাল(Google Adsense Approval) পাওয়া অনেক বেশি কঠিন হয়ে যাচ্ছে। বেশির ভাগ ব্লগে শুধু মাত্র লো ভ্যালু কনটেন্ট(Low value content) দেখিয়ে রিজেক্ট করে দিচ্ছে।
কিভাবে গুগল এডসেন্স এর লো ভ্যালু সমস্যার সমাধান করবেন এবং ১০০% এডসেন্স এপ্রুভ পাবেন তা নিয়েই আলোচনা করবো। গুগল কিছুদিন আগে একটা আপডেট নিয়ে এসেছে সেই আপডেটের পর গুগল আরও বেশি কঠিন হয়ে পড়েছে নতুন ব্লগারদের উপর।

যেভাবে গুগল এডসেন্স লো ভ্যালু সমস্যার সমাধান করবেন

নতুন একটি ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করলে লো ভ্যালু কনটেন্ট দেখিয়ে রিজেক্ট করে দেয়। কেন গুগল ওয়েবসাইটকে লো ভ্যালু সমস্যার জন্য রিজেক্ট করলো চলুন জেনে নেওয়া যায়-
  • ওয়েবসাইটের যে থিম বা টেমপ্লেট ছিলো ওটা মোবাইল ফ্রেন্ডলি না।
  • Google Search Consol থেকে যেটা বুজতে পারি গত ২ সপ্তাহে কোন ইম্পেশন এবং ক্লিক ছিল না।
  • কোন ব্যাকলিংক ছিলো না।
  • ভিজিটরের সংখ্যা ছিলো খুবই কম এবং বাউন্সরেট ছিলো তুলনা মূলক ভাবে অনেক বেশি।
উপরে যে কারণ উল্লেখ করেছি মূলত এই কারণের জন্যই লো ভ্যালু সমস্যা দেখিয়ে গুগল রিজেক্ট করে।.

কিভাবে এগুলো সমাধান করবেন

১. ব্লগে বা ওয়েবসাইটে যে থিমটি ব্যবহার করবেন তা অবশ্যই যেন মোবাইল ফ্রেন্ডলি এবং এডসেন্স ফ্রেন্ডলি হয়। Gpl বা ক্রাক থিম হলেও এডসেন্স পাবেন। শর্ত হলো-থিম ইউজার ফ্রেন্ডলি এবং হালকা হতে হবে। গুগল সব সময় সাদা মাটা থিম পছন্দ করে।
২. কিওয়ার্ড রিসার্চ(Keyword research) করে আটিকেল লিখে সাইটে পাবলিশ করতে হবে। অর্গানিক ভিজিটর না থাকলেও এডসেন্স পাবেন। কিন্তু গুগল এডসেন্স দেয় এমন কিওয়ার্ড নিয়ে কনটেন্ট লিখতে হবে।

৩. পোস্ট ছোট হোক কিংবা বড় হোক অবশ্যই সঠিক ইনফরমেশন থাকতে হবে। তবে চেষ্টা করবেন ৪০০ শব্দের উপরে ব্যবহার করার।

৪. ব্যাকলিংক আপনার ওয়েবসাইটকে যেমন রেংক করাতে সাহায্য করে তেমনই এডসেন্স এপ্রুভাল পেতেও অনেক সাহায্য করে। তবে এমন কিছু সাইট থেকে ব্যাকলিংক নিতে হবে যাতে করে সেই সাইটের অথরিটি ভালো থাকে এবং আপনার একই নিশের হয়।
৫. বাউন্স রেট বেড়ে যাওয়ার মূল কারন হলো আপনার সাইটে ভিজিটর কোন পোস্ট না পড়ে চলে যাই। এজন্য আপনাকে এমন কোন আর্টিকেল লিখতে হবে যাতে করে ভিজিটর আপনার লেখা গুলো পড়ে।

আজকে এখানেই শেষ করছি। সবাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন। jorip24.com সাথেই থাকুন। আর সময় পেলে আমার ওয়েবসাইট থেকে ঘুরে আসুন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

জরিপ টোয়েন্টিফোর ডটকম এর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url